Pallibarta.com | বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসক ও নার্স নেবে মালদ্বীপ - Pallibarta.com

বুধবার, ১৮ মে ২০২২

বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসক ও নার্স নেবে মালদ্বীপ

বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসক-নার্স নেবে মালদ্বীপ

বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসক ও নার্স নেবে মালদ্বীপ। প্রধানমন্ত্রীর মালদ্বীপ সফরকালে বুধবার দেশটির সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশের একটি চুক্তি হবে, যার আওতায় মালদ্বীপ বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসক ও নার্স নেবে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরসঙ্গী হিসেবে মালদ্বীপ সফরে যাচ্ছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) সকালে সচিবালয়ে এক সভায় দু’দেশের মধ্যকার আনুষ্ঠানিকতা, বিভিন্ন চুক্তি সম্পন্ন করার প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা হয়। এসময় সফরকালে চুক্তি সইয়ের বিষয়ে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এদিকে দেশে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে সার্বিক প্রস্তুতি রয়েছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই। দেশে এখনও ওমিক্রন ছড়ায়নি। ওমিক্রন ঠেকাতে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

ফ্রন্টলাইনার ও ষাটোর্ধ্বরা আগের টিকা কার্ড নিয়ে কেন্দ্রে গেলেই বুস্টার ডোজ পাবেন বলেও জানান মন্ত্রী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজ সবাইকে দিতে সুরক্ষা অ্যাপের আপডেট করা হচ্ছে। কিছু সংশোধন করা হচ্ছে। এখন সীমিত আকারে দেওয়া হচ্ছে ডাক্তার-নার্সসহ ফ্রন্টলাইনারদের। টিকা গ্রহণের কার্ড নিয়ে ষাটোর্ধ্ব ও ফ্রন্টলাইনাররা বুস্টার ডোজ নিতে পারবেন। এ পর্যন্ত করোনা টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ৬০ শতাংশ মানুষকে। দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছে ৩৫ শতাংশ মানুষকে।

আরও পড়ুন: চালু হচ্ছে কৃষি ট্রেন

তিনি বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে টিকা কার্যকরী ভূমিকা রেখেছে। এখন পর্যন্ত প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে ৭ কোটি, যা শতকরা ৬০ ভাগ মানুষ পেয়েছে। আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে সাড়ে ৪ কোটি, শতকরা হিসাবে তা ৩০ ভাগ। সরকারের টার্গেট ১২ থেকে ১৩ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া। এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৩০ ভাগ মানুষকে।

মন্ত্রী জানান, ইতোমধ্যে বিশ্বের ৯০টি দেশে ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়েছে। আমাদের দেশেও নতুন এই ধরনটি ধরা পড়েছে। কক্সবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে মানুষ মাস্ক না পরেই ভিড় করা, রাজনৈতিক সমাবেশেও মাস্ক না পরায় করোনা সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর মালদ্বীপ সফরকালে বুধবার দেশটির সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশের একটি চুক্তি হবে, যার আওতায় মালদ্বীপ বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসক ও নার্স নেবে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরসঙ্গী হিসেবে মালদ্বীপ সফরে যাচ্ছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) সকালে সচিবালয়ে এক সভায় দু’দেশের মধ্যকার আনুষ্ঠানিকতা, বিভিন্ন চুক্তি সম্পন্ন করার প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা হয়। এসময় সফরকালে চুক্তি সইয়ের বিষয়ে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এদিকে দেশে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে সার্বিক প্রস্তুতি রয়েছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই। দেশে এখনও ওমিক্রন ছড়ায়নি। ওমিক্রন ঠেকাতে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।ফ্রন্টলাইনার ও ষাটোর্ধ্বরা আগের টিকা কার্ড নিয়ে কেন্দ্রে গেলেই বুস্টার ডোজ পাবেন বলেও জানান মন্ত্রী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজ সবাইকে দিতে সুরক্ষা অ্যাপের আপডেট করা হচ্ছে। কিছু সংশোধন করা হচ্ছে। এখন সীমিত আকারে দেওয়া হচ্ছে ডাক্তার-নার্সসহ ফ্রন্টলাইনারদের। টিকা গ্রহণের কার্ড নিয়ে ষাটোর্ধ্ব ও ফ্রন্টলাইনাররা বুস্টার ডোজ নিতে পারবেন। এ পর্যন্ত করোনা টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ৬০ শতাংশ মানুষকে। দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছে ৩৫ শতাংশ মানুষকে।

তিনি বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে টিকা কার্যকরী ভূমিকা রেখেছে। এখন পর্যন্ত প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে ৭ কোটি, যা শতকরা ৬০ ভাগ মানুষ পেয়েছে। আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে সাড়ে ৪ কোটি, শতকরা হিসাবে তা ৩০ ভাগ। সরকারের টার্গেট ১২ থেকে ১৩ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া। এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৩০ ভাগ মানুষকে।

মন্ত্রী জানান, ইতোমধ্যে বিশ্বের ৯০টি দেশে ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়েছে। আমাদের দেশেও নতুন এই ধরনটি ধরা পড়েছে। কক্সবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে মানুষ মাস্ক না পরেই ভিড় করা, রাজনৈতিক সমাবেশেও মাস্ক না পরায় করোনা সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১