Pallibarta.com | হাসান আলীর পাঁচে ৩৩০ রানে থামলো বাংলাদেশ - Pallibarta.com

শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি ২০২২

হাসান আলীর পাঁচে ৩৩০ রানে থামলো বাংলাদেশ

হাসান আলীর পাঁচে ৩৩০ রানে থামলো বাংলাদেশ

হাসান আলীর পাঁচে ৩৩০ রানে থামলো বাংলাদেশ দ্বিতীয় দিন হাসান আলীর দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি বাংলাদেশ। ৪ উইকেটে ২৫৩ রান নিয়ে দিন শুরু করে স্বাগতিকরা অলআউট হয় ৩৩০ রানে। হাসান একাই নেন ৫ উইকেট।আলোক স্বল্পতার কারণে বাংলাদেশ-পাকিস্তান প্রথম টেস্টের প্রথম দিন ৫ ওভার খেলা কম হয়। এ জন্য শনিবার দ্বিতীয় দিন খেলা শুরু হয়েছে ১১ মিনিট আগে। ৮৫ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৫৩ রান তুলে প্রথম দিন শেষ করেছিল বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম ৮২ ও লিটন কুমাস দাস ১১৩ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু করেন।

মুশফিক-লিটনে আরও একটি সুন্দর দিনের অপেক্ষায় ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু দিনের দ্বিতীয় ওভারেই লিটনকে হারালো বাংলাদেশ। এদিন ৮টি বল খেলেছেন লিটন, রান করেছেন এক। পাকিস্তানের পেসার হাসান আলীর বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফিরতে হয় তাকে। এর মধ্য দিয়ে পঞ্চম উইকেটে মুশফিক–লিটনের ৪২৫ বলে ২০৬ রানের জুটিও ভেঙে গেল। লিটনের প্রথম সেঞ্চুরির ইনিংসটি শেষ হলো ১১৪ রানে। ২৩৩ বলে ১১টি চার ও একটি ছক্কায় এই রান করেন তিনি।

লিটনের বিদায়ে উইকেটে মুশফিকের সঙ্গে যোগ দেন অভিষিক্ত ইয়াসির আলী রাব্বি। কিন্তু নিজের টেস্ট অভিষেকটি রাঙাতে পারলেন না রাব্বি। ব্যক্তিগত ৪ রান হাসান আলীর দুর্দান্ত পেসে বোল্ড হন তিনি।

দ্বিতীয় দিনে নিজের অষ্টম সেঞ্চুরির অপেক্ষায় ছিল মুশফিক। কিন্তু নড়বড়ে নব্বইয়ের ঘরে সাজঘরে ফিরতে হল বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলা মুশফিককে। ৯৯তম ওভারে ফাহিম আশরাফের বল মুুশফিকের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে জমা পড়ে মোহাম্মদ রিজওয়ানের গ্লাভসে। ২২৫ বলে ৯১ রান করে আউট হন মুশফিক।

মুশফিক ফেরার পর দলের হাল ধরেন মেহেদী-তাইজুল। ১০৬তম ওভারে সাজিদ খানকে চার মেরে দলকে ৩০০ রানের দেখা পাইয়ে দেন মেহেদী হাসান। দলীয় ৩০৪ রানে তাইজুলকে ফেরালেন শাহিন আফ্রিদি। ২৮ বলে ১১ রান করে ফিরলেন তাইজুল।

স্বীকৃত ব্যাটসম্যানের সঙ্গ ছাড়াই ইতিবাচক ব্যাট করেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তাইজুলের সঙ্গে ২৮ রানের জুটি ভেঙে যাওয়ার পর আবু জায়েদকে নিয়ে লড়াই করেন এ স্পিন অলরাউন্ডার।

শেষদিকে হাসান আলীর জোড়া শিকারে ফিরলেন জায়েদ (৮) ও ইবাদত (০)। ৩৮ রানে অপরাজিত থাকেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

বাংলাদেশ দল:

সাদমান ইসলাম, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস (উইকেটকিপার), ইয়াসির আলী, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, আবু জায়েদ রাহী, ইবাদত হোসেন।

পাকিস্তান দল:

আব্দুল্লাহ শফিক, আবিদ আলী, আজহার আলী, বাবর আজম (অধিনায়ক), ফাওয়াদ আলম, মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটকিপার), ফাহিম আশরাফ, নওমান আলী, হাসান আলী, শাহীন শাহ আফ্রিদি, সাজিদ খান

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১