Pallibarta.com | যেভাবে চলছে বাহরাইনে বাংলাদেশি স্কুলে শিক্ষা কার্যক্রম - Pallibarta.com

বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

যেভাবে চলছে বাহরাইনে বাংলাদেশি স্কুলে শিক্ষা কার্যক্রম

যেভাবে চলছে বাহরাইনে বাংলাদেশি স্কুলে শিক্ষা কার্যক্রম

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ বাহরাইনে অনলাইনভিত্তিক চলছে শিক্ষা কার্যক্রম। পৃথিবীব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে মানব জীবন খুঁড়িয়ে চললেও শিক্ষা কার্যক্রমও থেমে নেই। তবে আগের মতো প্রাণোচ্ছল নেই কোনো কিছুতেই।

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়ে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যখন করোনাভাইরাস তার আগ্রাসী থাবা বসানো শুরু করেছে, ঠিক তখনই ২০২০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি বাহরাইনের এক স্কুলের ড্রাইভারের শরীরে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

২৬ ফেব্রুয়ারি সাময়িক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ ঘোষণা করা হয়। অদ্যাবধি খোলা হয়নি কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তাই বলে থেমে থাকেনি শিক্ষা কার্যক্রম। জুম সফটওয়্যারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ক্লাস পরিচালনা করা হচ্ছে।

এতে শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ ঘরে বসেই বিদ্যালয়ের ক্লাসগুলো নিয়মিত করতে পারছে। শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে শিক্ষা কার্যক্রম চালানোয় একদিকে যেমন উপকৃত হচ্ছে শিক্ষার্থীরা অন্যদিকে মানসিক প্রশান্তিতে ঘটতি থেকে যাচ্ছে।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ স্কুল বাহরাইনের শিক্ষার্থী জুবায়ের বিন বশির আহমদ বলেন, ঘরে বসে যদিও ক্লাস করতে পারছি। কিন্তু সহপাঠীদের সঙ্গে বসে ক্লাসে যে আনন্দ করতাম তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছি।

দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী লামিয়া হোসাইন জানান, অনলাইন ক্লাসে কোনো সমস্যা হচ্ছে না। ক্যাম্পাসে যেভাবে সবার সংস্পর্শে আনন্দ অনুভব করতাম এখন এটা নেই। তাছাড়া সাইন্সের প্রাক্টিক্যাল থেকে বঞ্চিত হচ্ছি।

বাংলাদেশ স্কুলের শিক্ষক মোসাদ্দেকুল ইসলাম বলেন, সরাসরি ক্লাসে ছাত্রছাত্রীদের যেভাবে বোঝানো যেত অনলাইনে ক্লাস করিয়ে হয়তো শতভাগ বোঝানো সম্ভব হচ্ছে না। তার পরও বন্ধ থাকার চেয়ে মোটামুটি ৭০ শতাংশ সফল। আমরা স্কুলের অ্যাসাইনমেন্ট ও পরীক্ষা জুম সফটওয়্যারের মাধ্যমে পরিচালনা করছি।

এরই মধ্যে স্কুলের সবগুলো পরীক্ষা ও রেজাল্ট দিয়েছি। এছাড়া প্রথম দিকে কিছুটা প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয়েছিল। একই পরিবারে ২-৩ জন ছাত্রছাত্রী ছিল কিন্তু সে পরিমাণ ডিভাইস ছিল না। পরে অবশ্য অনেকেই কম্পিউটার, ল্যাপটপ, মোবাইল কিনে নেওয়ায় উপস্থিতির হার আগের তুলনায় বেড়েছে।

তিনি বলেন, শুরুতে যেখানে ২০-৩০ শতাংশের উপস্থিতি ছিল বর্তমানে প্রায় ৫০ শতাংশ। তাছাড়া সাইন্সের বিষয়ে প্রাক্টিক্যালি দেখানো সম্ভব হচ্ছে না। তারপরও আমরা ইউটিউবের লিংক শেয়ার করে দেখার সুযোগ করে দিচ্ছি।

১৮ লাখ জনসংখ্যার ছোট্ট এই দ্বীপরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত দুই লাখ ৫১ হাজার ৭৮ জনের বেশি। করোনায় মারা গেছেন এক হাজার ১১৯ জনের বেশি। এর মধ্যে বাংলাদেশির সংখ্যা ৭৮ জন। শুধু মে মাসেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৩২ বাংলাদেশি- এ তথ্য নিশ্চিত করেছে মানামার বাংলাদেশ দূতাবাস।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০