Pallibarta.com | ভারত-অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে চারদলীয় টুর্নামেন্টের ভাবনা পাকিস্তানের - Pallibarta.com

সোমবার, ১৬ মে ২০২২

ভারত-অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে চারদলীয় টুর্নামেন্টের ভাবনা পাকিস্তানের

ভারত-অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে চারদলীয় টুর্নামেন্টের ভাবনা পাকিস্তানের

বিশ্বকাপ, আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি কিংবা এশিয়া কাপ ছাড়া এখন আর ক্রিকেট মাঠে মুখোমুখি হয়নি ভারত এবং পাকিস্তান। নানাভাবে চেষ্টা করেও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে দ্বি-পাক্ষিক সিরিজের জন্য রাজী করাতে পারেনি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড।

তবে এবার ভারতের বিপক্ষে খেলার জন্য ভিন্ন পথে হাঁটতে যাচ্ছে পাকিস্তান। তারা আগামী আইসিসি বৈঠকেই একটি চারদেশীয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজনের প্রস্তাব পেশ করতে যাচ্ছে।

এই টুর্নামেন্টের মাধ্যমে ভারত-পাকিস্তান পরস্পরের বিপক্ষে খেলাই নয় শুধু, এখান থেকে ৬৫ বিলিয়ন ডলার আয়েরও সুযোগ তৈরি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যা এই চারটি দেশ এবং আইসিসির মাধ্যমে বন্টন করা হবে। আইসিসির মাধ্যমে বন্টিত অর্থ ক্রিকেটে পিছিয়ে থাকা দেশগুলোতে ব্যায় করা সম্ভব হবে।

এই প্রস্তাবটি এসেছে মূলতঃ পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড চেয়ারম্যান রমিজ রাজার মাথা থেকেই। আগামী সপ্তাহেই দুবাইতে আইসিসির বোর্ড মিটিং অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানেই এই প্রস্তাব পেশ করবেন রমিজ রাজা।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলাকালেই ভারত, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডকে নিয়ে এক চারদেশিয় টুর্নামেন্ট করার কথা প্রথম বলেছিলেন। সেই প্রস্তাবটিকেই এখন চূড়ান্ত রূপ দেয়ার ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

কিভাবে এই টুর্নামেন্ট থেকে ৬৫ বিলিয়ন ডলার আয় করা সম্ভব হবে সে বিষয়ে আইসিসির সামনে একটি রিপোর্টও পেশ করা হবে। এই টুর্নামেন্ট থেকে পাওয়া লাভের অর্থের একাংশ ব্যবহার করা হবে ছোট ছোট দেশগুলোর ক্রিকেট পরিকাঠামো উন্নয়নে।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড প্রস্তাবিত এই টুর্নামেন্টটি প্রতি বছরই আয়োজন করতে চায়। একাধিক আন্তর্জাতিক সিরিজ, আইসিসি নানা টুর্নামেন্ট, ফ্রাঞ্চাইজি লিগের ঠাসা সূচির মধ্যে চারদলীয় সিরিজের একটি সম্ভাব্য সময়ও পিসিবি বের করেছে। সেপ্টেম্বর-অক্টোবরের মধ্যে হতে পারে এই টুর্নামেন্ট। কারণ, অস্ট্রেলিয়া-ভারত-পাকিস্তানে তখন মৌসুম শুরুর সময়, ইংল্যান্ডে শেষের সময়।

টুর্নামেন্টটি হবে সিঙ্গেল লেগের, মোট ৬টি ম্যাচের। প্রথম পর্বে প্রতি দল একবার করে পরস্পরের মুখোমুখি হবে। গ্রুপ পর্বে মোট ৬টি ম্যাচ হবে। এরপর ফাইনাল এক ম্যাচের অথবা তিন ম্যাচেরও হতে পারে। পর্যায়ক্রমে চার দেশই টুর্নামেন্টের আয়োজক হবে। তবে টুর্নামেন্টের নিয়ন্ত্রণ থাকবে আইসিসির হাতে।

কারণ, আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী কোনও দেশ ত্রিদেশীয় সিরিজ আয়োজন করতে পারে। তবে চারদেশীয় সিরিজ আয়োজন করতে গেলে আইসিসি ছাড়া অন্য কারো পক্ষে সম্ভব নয়।

টুর্নামেন্টের মূল লক্ষ্য, বিপুল পরিমাণ আর্থিক লাভ। সম্ভাব্য আয় ৬৫ কোটি ডলারের আশেপাশে। যার বড় অংশই সম্প্রচার স্বত্ব ও বাণিজ্যিক চুক্তি থেকে আসবে। আইসিসি ও অন্যান্য সদস্য দেশগুলোকে রাজি করানোর উপকরণও থাকছে প্রস্তাবে। শুধু অংশগ্রহণকারী চার দলই আর্থিকভাবে লাভবান হবে না, আয়ের একটা বড় অংশ দেওয়া হবে আইসিসির অন্যান্য পূর্ণ ও সহযোগী দেশগুলোকেও।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১