ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপি-ছাত্রলীগের উত্তেজনা, ১৪৪ ধারা জারি - Pallibarta.com

শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপি-ছাত্রলীগের উত্তেজনা, ১৪৪ ধারা জারি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপি-ছাত্রলীগের উত্তেজনা, ১৪৪ ধারা জারি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা বিএনপি ও জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে একই স্থানে শনিবার (৮ জানুয়ারি) দুপুর ২টায় সমাবেশের ডাক দেওয়ায় শহরে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এবং বিশৃঙ্খলা এড়াতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আগামীকাল ভোর ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ফুলবাড়িয়া কনভেনশন সেন্টারসহ পুরো পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে জেলা প্রশাসন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপি-ছাত্রলীগের উত্তেজনা, ১৪৪ ধারা জারি

জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান স্বাক্ষরিত পত্রে সব ধরনের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) বিকেলে থেকে পৌর এলাকায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও সংশ্লিষ্টরা জানায়, আগামীকাল শনিবার দুপুর ২টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের ফুলবাড়িয়া কনভেনশন সেন্টার এলাকায় বিএনপির পক্ষ থেকে জেলা পর্যায়ে পূর্ব ঘোষিত সমাবেশ আহবান করা হয়। এতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ কেন্দ্রীয় ও জেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। কিন্তু একই স্থানে জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের সমাবেশ আহ্বান করা হয়। একই সময়ে একই স্থানে উভয় পক্ষ সমাবেশের ডাকায় পুরো এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি জানান, গত ১৫ দিন আগে আমরা সমাবেশ করার ব্যাপারে জেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছি। আগামীকাল আমাদের সমাবেশ হওয়ার কথা রয়েছে।

ইতোমধ্যে আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। তবে হঠাৎ করে জানতে পারলাম এখানে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে একটি সমাবেশ আহ্বান করা হয়েছে। আমরা জানি না কেন করা হয়েছে বলেও জানা তিনি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপি-ছাত্রলীগের উত্তেজনা, ১৪৪ ধারা জারি

তিনি অভিযোগ করে বলেন, সমাবেশের আগ মুহূর্তে জেলা বিএনপি’র আহবায়ক জিল্লুর রহমান, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জহিরু হক খোকন ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিরাজ ও পৌর বিএনপির সদস্যসচিব মিজানুর রহমানসহ চার নেতাকর্মীকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। তারা কোথায় আছে এখনো আমরা জানিনা। তবে ঘটনা যাই হোক আগামীকাল যে কোনো মূল্যে সমাবেশ করা হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন জানান, গত ৪ জানুয়ারি ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ছিল। কিন্তু ৫ জানুয়ারি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন থাকায় ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানটি হয়নি। আগামীকাল তারা প্রশাসনের কাছে আবেদন অনুযায়ী শহরের ফুলবাড়িয়া কনভেনশন সেন্টারের সামনে করার ঘোষণা দিয়েছেন। তারা জানান, তাদের সমাবেশ স্থলে যদি কেউ বিশৃঙ্খলা চেষ্টা করে তাহলে যে কোনো মূল্যে তারা তাদেরকে প্রতিহত করবেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম জানান, সমাবেশকে ঘিরে কোন পক্ষই যেন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না করতে পারে সে জন্য পুলিশ সতর্ক অবস্থান রয়েছে। জেলা বিএনপির শীর্ষ চার নেতাকে আটকের বিষয়টি তিনি জানেন না বলে জানান।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১