Pallibarta.com | বিবাহবিচ্ছেদ: প্রিন্সেস হায়াকে ৭৩ কোটি ডলার দিতে দুবাইর শাসককে বৃটিশ আদালতের নির্দেশ - Pallibarta.com

বুধবার, ১৮ মে ২০২২

বিবাহবিচ্ছেদ: প্রিন্সেস হায়াকে ৭৩ কোটি ডলার দিতে দুবাইর শাসককে বৃটিশ আদালতের নির্দেশ

বিবাহবিচ্ছেদ: প্রিন্সেস হায়াকে ৭৩ কোটি ডলার দিতে দুবাইর শাসককে বৃটিশ আদালতের নির্দেশ

দুবাইর শাসক মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাকতুমকে তার সর্বকনিষ্ঠ স্ত্রী প্রিন্সেস হায়া বিনত আল-হুসেইনের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য মোট ৭৩ কোটি ডলার দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে বৃটেনের একটি আদালত। প্রিন্সেস হায়া জর্ডানের সাবেক রাজা হুসেইনের কন্যা। তার আজীবনের নিরাপত্তা ব্যয় নিশ্চিতের জন্যেই এই পরিমাণ অর্থ প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক ফিলিপ মুর। দুবাইর শাসক ও ৪৭ বছর বয়সী প্রিন্সেস হায়ার রয়েছে দুই সন্তান। বিচারক বলেন, নিরাপত্তা ব্যতিত নিজের জন্য অর্থ চাননি প্রিন্সেস হায়া। তবে এই বিয়ে বিচ্ছেদের কারণে তিনি সম্পত্তির যে ভাগ হারিয়েছেন তার ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে তাকে। এ জন্য দুবাইর শাসককে আগামি ৩ মাসের মধ্যে প্রিন্সেস হায়াকে এককালীন ২৫ কোটি ১৫ লাখ পাউন্ড দিতে হবে।

প্রিন্সেস হায়া ২০১৯ সালে তার দুই ছেলেমেয়েকে নিয়ে বৃটেনে পালিয়ে যান। তখন তিনি বলেন তিনি তার স্বামীর আচরণে আতঙ্কিত অনুভব করেছেন।

তার দাবি, শেখ মোহাম্মদ তার দুই মেয়ে শেখ লতিফা ও শেখ শামসাকে অপহরণ করিয়েছেন, ফলে তিনি এখন তার নিজের জীবন নিয়ে আশংকার মধ্যে আছেন। ইংল্যান্ডের আইনী জগতের ইতিহাসে একে বলা হচ্ছে সবচেয়ে বড় বিবাহবিচ্ছেদের মামলা। এর আগে ২০১৬ সালে বিবাহবিচ্ছেদের জন্য রুশ নাগরিক তাতিয়ানা আখমেদোভাকে ৪৫ কোটি পাউন্ড প্রদানের রায় দিয়েছিল দেশটির আদালত।

প্রিন্সেস হায়া ও তার দুই সন্তানের নিরাপত্তার জন্য বছরে ১.১ কোটি পাউন্ড প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এই অর্থ দিয়ে যেতে হবে যতদিন দুই সন্তান প্রাপ্ত বয়স্ক না হয়। তাদের শিক্ষার জন্য আরও ৩০ লাখ পাউন্ড দিতে হবে। দুই সন্তান বিশ্ববিদ্যালয়ে উঠলে প্রিন্সেস হায়া আজীবন প্রতি বছর ৫৫ লাখ পাউন্ড করে পাবেন। দুই সন্তানও তখন একই পরিমাণ অর্থ পাবে।

বিবাহবিচ্ছেদ: প্রিন্সেস হায়াকে ৭৩ কোটি ডলার দিতে দুবাইর শাসককে বৃটিশ আদালতের নির্দেশ

প্রিন্সেস হায়া ছিলেন শেখ মোহাম্মদের ষষ্ঠ এবং কনিষ্ঠতম স্ত্রী। শেখ মোহাম্মদ শুধু দুবাইয়ের ধনাঢ্য শাসক এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রীই নন, তিনি ঘোড়দৌড়ের জগতেও রেসের ঘোড়ার একজন প্রভাবশালী মালিক। প্রিন্সেস হায়া তার এক বৃটিশ দেহরক্ষী সাবেক সেনার সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন বলে জানার পর শেখ মোহাম্মদ ‘তুমি বেঁচে ছিলে, তুমি মরে গেছো’ নামে একটি কবিতা প্রকাশ করেন। এতে প্রিন্সেসকে হুমকি দেয়া হয় বলে অনুমান করা হয়। তার দাবি, বৃটেনে আসার পরও তিনি হুমকি পেয়েছেন। তাদের দুই সন্তানের মধ্যে এক কন্যার বয়স ১৪ বছর এবং পুত্রের বয়স নয় বছর।

প্রিন্সেস হায়ার বৃটেনে বহু লক্ষ পাউ- দামের দুটি বাড়ি রয়েছে। এগুলো রক্ষণাবেক্ষণের খরচও দুবাইর শাসককে দিতে হবে বলে রায়ে রয়েছে। এ বাড়িগুলোর একটি লন্ডনের কেনসিংটন প্রাসাদের পাশেই, এবং অপরটি সারে কাউন্টির এগহ্যামে। এ ছাড়া রায়ে প্রিন্সেসের নিরাপত্তার ব্যয়, ছুটি কাটানোর খরচ, একজন নার্স ও আয়ার বেতন ও আবাসনের খরচ, পরিবারের জন্য বুলেটপ্রুফ গাড়ি, এবং তার পালিত ঘোড়া ও অন্যান্য প্রাণীর খরচ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১