Pallibarta.com | প্রথম দিনেই জমজমাট মালয়েশিয়ার ইফতার বাজার - Pallibarta.com

বুধবার, ১৮ মে ২০২২

প্রথম দিনেই জমজমাট মালয়েশিয়ার ইফতার বাজার

প্রথম দিনেই জমজমাট মালয়েশিয়ার ইফতার বাজার ইফতারি কেনায় ব্যস্ত মালয়েশিয়ার মুসলিমরা

মহামারির কারণে গত দুই বছর রমজানের বাহারি ইফতার থেকে বঞ্চিত ছিলেন মালয়েশিয়ার মুসলিমরা। তবে এবার সেই ইফতার কেনার সুযোগ পাচ্ছেন তারা। ফলে রমজানের প্রথম দিনেই দেশটির ইফতার বাজারে দেখা মেলে মানুষের ভিড়।

গত বছরের রোজার কথা স্মরণ করে আব্দুল হাফিজ আবদুল্লানি নামে কুয়ালালামপুর হাসপাতালের একজন কর্মী বলেন, আমি অনেক দিন ধরে এখনকার মতো পরিবেশ দেখিনি। এটি একটি ভিন্ন অনুভূতি।

বাজার খোলার অনুমতি দেওয়ায় দেশটির সরকারকে স্বাগত জানিয়ে ব্যবসায়ী আরিয়ান রামলি বলেন, দুই বছরের বেশি সময় ধরে কোনো বাজার ছিল না। তবে এই বছর আবার ব্যবসা করতে পেরে আনন্দিত।

এর আগে মালয়েশিয়ার ফেডারেল টেরিটরির মন্ত্রী দাতুক সেরি শাহিদান কাসিম জানিয়েছিলেন, কুয়ালালামপুর রমজানে ৫ হাজার স্টলসহ মোট ৭২টি ইফতার বাজার থাকবে।

এর মধ্যে কুয়ালালামপুরে সেরা ইফতার বাজার হলো- টিটিডিআই, কাম্পং বারু, বাংসার, স্টেডিয়াম শাহ আলম, বুকিত বিনতাং, কেলানা জায়া, মেলাওয়াতী, মসজিদ ইন্ডিয়া, বান্দর তুন রাজাক ও এসএস ১৩। এসব বাজারে বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে ইফতারি নিয়ে বসেন ব্যবসায়ীরা।

মালয়েশিয়ায় সাধারণত শুকনো খাবার বা খেজুর দিয়ে রোজা ভাঙেন মুসলমানরা। এছাড়া তাদের কিছু বিখ্যাত ইফতার আইটেম তো রয়েছেই।

মালয়েশিয়ার একটি স্থানীয় ইফতার আইটেমের নাম হচ্ছে ‘বারবুকা পুয়াসা’। এটা আখের রস এবং দুধ দিয়ে তৈরি এক ধরনের বিশেষ মিষ্টান্ন। এছাড়া মালয়েশিয়ার ইফতারে থাকে- নাসি আয়াম, পপিয়া বানাস, আয়াম পেরিক, লেমাক লাঞ্জা ইত্যাদি। সঙ্গে বিভিন্ন স্থানীয় খবর।

মালয়েশিয়ায় মসজিদ থেকে রোজাদারদের ‘বুবুর ল্যাম্বাক’ নামক একটি খাবার বিনামূল্যে দেওয়া হয়। চাল, মাংস, নারিকেলের দুধ, ঘি ইত্যাদি দিয়ে তৈরি হয় এই খাবার। প্রায় পাঁচ দশক আগে কুয়ালালামপুর কেন্দ্রীয় মসজিদ থেকে খাবারটি বিতরণের প্রচলন শুরু হয়।

 

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১