Pallibarta.com | পরকীয়ায় বাধা, স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ। Page

মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১

পরকীয়ায় বাধা, স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ।

যশোরের শার্শা উপজেলার বাগঁআচড়ার সাতমাইল নামক গ্রামে লাবনী খাতুন (২৩) নামে এক গৃহবধূকে মারধরের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী ইমামুল ও তার পরিবারের লোকজন পলাতক রয়েছে।

শনিবার (৩১ জুলাই) বিকেল ৪টায় পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। এর আগে সকাল ১০টার দিকে স্বামীর বাড়িতে তাকে মারধর করে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহতের স্বজন ও প্রতিবেশীরা জানায়, পাঁচ বছর আগে যশোরের মনিরামপুর উপজেলার চাকলা কাঁটালতলা গ্রামের সবুজ আলী গাজীর মেয়ে লাবীর সঙ্গে বিয়ে হয় শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়ার সাতমাইল এলাকার শফিকুল ইসলাম শফির ছেলে ইমামুল ইসলামের। তাদের ঘর আলো করে আসে একটি ছেলে সন্তান। প্রথমে সংসার জীবন ভালো চললেও বাঁধ সাধে স্বামীর পরকীয়া। 
শুক্রবার (৩০ জুলাই) রাতে স্বামীর ফোন দেখতে গিয়ে স্থানীয় একটি মেয়ের সঙ্গে পরকীয়া প্রেম আলাপের একটি অডিও রেকর্ডিং শুনতে পায় লাবনী। আর এটা হয় তার জীবনের কাল। স্বামীর কাছে পরকীয়ার বিষয় জানতে চাইলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রী লাবনীকে মারধরের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে তার স্বামী। পরে সেটি আত্মহত্যা বলে রটাতে লাবনীর মরদেহ ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রাখে।
নিহতের বাবা সবুজ আলী গাজী জানায়, জামাই প্রায়ই তার মেয়েকে নির্যাতন করতো। মেয়ের শরীরের বিভিন্ন জাগায় মারধরের চিহ্ন রয়েছে। সকালেও তাকে মারধর করা হয়। পুলিশ আসার খরবে জামাই, বেয়াইসহ বাড়ির লোকজন গা ঢাকা দিয়েছে। এ হত্যার সঠিক বিচার চাই। পুলিশ তদন্ত করলে রহস্য উদঘাটন হবে।
শার্শা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি বদরুল আলম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করেছে। শশুর বাড়ির কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে নিহতের বাপের বাড়ির লোকজনদের থানায় আপাতত অপমৃত্যু মামলা দায়ের করতে বলা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে যদি হত্যা প্রমাণিত হয়, তখন হত্যা মামলা করতে পারবেন জানায় ওসি।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১