Pallibarta.com | দ্বিতীয় প্রাদেশিক রাজধানী তালেবানের নিয়ন্ত্রণে.............

মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

দ্বিতীয় প্রাদেশিক রাজধানী তালেবানের নিয়ন্ত্রণে

আফগানিস্তানে

এক দিনের মধ্যেই তালেবানদের হাতে দ্বিতীয় প্রাদেশিক রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনী। এক দিনের মধ্যেই তালেবানদের হাতে দ্বিতীয় প্রাদেশিক রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনী। বার্তা সংস্থা এএফপির সূত্রে জানা যায়, শনিবার সকালে জওজান প্রদেশের রাজধানী শেবেরঘান সংগঠনটির নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। জওজান দেশটির উত্তরাঞ্চলে তুর্কমেনিস্তান সীমান্তে অবস্থিত।

প্রদেশটির ডেপুটি গভর্নর কাদের মালিয়া খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনক ভাবে শহরের পতন হয়েছে। সরকারি বাহিনীর সদস্য ও কর্মকর্তারা পিছু হটতে বাধ্য হয়েছেন। তারা বিমানবন্দরে আশ্রয় নিয়েছেন এবং সেখানে প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করছেন।’

প্রাদেশিক কাউন্সিলর বিসমিল্লাহ সাহিল জানান, গভর্নরের অফিস, পুলিশের প্রধান কার্যালয় এবং কেন্দ্রীয় জেলখানার মত গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে তালেবান। তবে এয়ারপোর্ট সহ শহরের কিছু এলাকা এখনও সরকার সমর্থিত বাহিনীর হাতে আছে বলে জানিয়েছেন মোহাম্মদ করিম জাওযানি নামের পার্লামেন্টের একজন সদস্য। তিনি জাওজানের সংসদ প্রতিনিধি।
আফগানিস্তানের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুল রশিদ দস্তুমের বাড়ি এই শেবেরঘানেই। যুদ্ধবাজ হিশেবে ভালোই নামডাক রয়েছে তার। নব্বইয়ের দশকে তালেবান কাবুল দখলের পর সংগঠনটির অগ্রযাত্রা থামাতে যে সামরিক জোট গঠন করা হয়েছিল তার একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন দস্তুম। সেসময় আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলে শক্তিশালী প্রতিরোধ গড়ে তোলে তার নেতৃত্বাধীন আধা সামরিক বাহিনী। তবে এই বাহিনীর বিরুদ্ধে হাজারো যুদ্ধবন্দি হত্যার অভিযোগ রয়েছে।

তালেবানের বিরুদ্ধে লড়তে এই সাপ্তাহেই তুরস্ক থেকে চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরে এসেছিলেন দস্তুম। আফগান সরকারের আশা ছিল, দস্তুমের নেতৃত্বে উত্তরাঞ্চলে তালেবানকে কাবু করা সম্ভব হবে। তবে শনিবার দস্তুমের নেতৃত্বাধীন বাহিনীসহ আফগান সরকারি বাহিনী পিছু হটায় তালেবান যোদ্ধাদের পরাজিত করার এই আশায় কিছুটা ভাটা পড়েছে।

এর আগে শুক্রবার রাতে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ইরানের সীমান্তবর্তী নিমরোজ প্রদেশের রাজধানী জারাঞ্জ শহর দখলের মাধ্যমে প্রথম দেশটির কোনও প্রদেশের রাজধানী নিয়ন্ত্রণে নেয় তালেবান। শহরটি দখলে কোনও প্রতিরোধের মুখে পড়েনি তালেবান। তবে শেবেরঘানের ক্ষেত্রে এমনটি হয়নি। বেশ কয়েকটি সূত্রে জানা গেছে শেবেরঘানে তালেবান যোদ্ধাদের প্রতিহত করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে আফগান সরকারি বাহিনী।

এদিকে শুক্রবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে গণমাধ্যম তথ্যকেন্দ্রের প্রধান দাওয়া খান মিনাপালকে এক মসজিদে গুলি করে হত্যা করে তালেবান। এর দায় স্বীকার করেছে তালেবান। তাদের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘কৃতকর্মের শাস্তি হিসেবে ‘বিশেষ অভিযানের মাধ্যমে’ তাকে হত্যা করা হয়েছে’।

আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির মুখপাত্রের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন মিনাপাল। কাবুলে কর্মরত আলজাজিরার সাংবাদিক জেমস বে বলেন, আফগান সাংবাদিকদের কাছে তিনি সুপরিচিত ছিলেন। তিনি প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির ঘনিষ্ঠদের একজন ছিলেন। জুমার নামাজ পড়তে তিনি ঘর থেকে বের হয়েছিলেন। তখনই তাকে হত্যা করা হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাড়িতেও হামলা চালিয়েছিল তালেবানরা সে হামলায় চার হামলাকারীসহ আটজন নিহত হয়। সব মিলিয়ে গত মে থেকে শুরু করে আফগানিস্তানের উল্লেখযোগ্য এলাকা এখন তালেবানদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে৷

এমন পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেন শনিবার তাদের নাগরিকদের যত দ্রুত সম্ভব আফগানিস্তান ত্যাগ করতে বলেছে৷ ব্রিটেনের পররাষ্ট্র দপ্তর বলেছে, আন্তর্জাতিক সৈন্য তুলে নেয়ার প্রেক্ষিতে ‘সন্ত্রাসীরা হামলার আশঙ্কা রয়েছে।’ এক্ষেত্রে দেশজুড়ে অপহরণের হুমকি রয়েছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়। এর আগে ইরানও তাদের নাগরিকদের দেশটি ত্যাগের পরামর্শ দিয়েছিল।

আগস্ট মাসের শেষ নাগাদ আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহার শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০