খেলাশীর্ষ-২শীর্ষ-৪

তসলিমাকে ধুয়ে দিয়ে যা বললেন মঈন আলীর বাবা

ইংল্যান্ড জাতীয় দলের স্পিন অলরাউন্ডার মঈন আলীকে নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে সমালোচনার মুখে পড়েছেন বির্তকিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। এক টুইট বার্তায় মঈনকে ‘জঙ্গির’ সঙ্গে তুলনা করলে ইংলিশ ক্রিকেটারদের কড়া জবাবের মুখে পড়েন তিনি। তসলিমার এমন মন্তব্যের পর চুপ থাকতে পারেননি মঈন আলীর বাবা মুনীর আলী। ফিরতি এক টুইট খুব সুন্দর ভাষায় তসলিমা নাসরিনকে ধুয়ে দিয়েছেন তিনি।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) আসন্ন আসরে চেন্নাই সুপার কিংসের (সিএসকে) হয়ে মাঠ মাতাতে যাচ্ছেন মঈন আলী। কিন্তু চেন্নাইয়ের জার্সি স্পন্সর একটি মাদক প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান হওয়ায় তা নিজের জার্সি থেকে সরিয়ে নিতে চেন্নাইকে অনুরোধ করেন তিনি, যা কোনো কথা ছাড়াই মেনে নেয় সিএসকে কর্তৃপক্ষ।

তবে মঈনের এমন ধর্মপ্রেম সহ্য করতে পারেননি বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। নিজের টুইটারে এক পোস্টে তাসলিমা লিখেছেন, ‘মঈন আলী ক্রিকেট না খেলে সিরিয়াতে যেয়ে আইএস-এ যোগ দিতেন!’

তসলিমার এমন আক্রমণাত্ম টুইটের পর কড়া জবাব দিতে শুরু করেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা। তাতে বিষয়টিকে সারকাজম হিসেবে তুলে ধরে ফের টুইট করেন তসলিমা। তবে বিষয়টি সহজভাবে নিতে পারেননি মঈন আলীর বাবা মুনীর আলী। এক টুইট বার্তা তিনি লিখেছেন, ‘আমার ছেলে মঈনকে নিয়ে তসলিমা নাসরিনের জঘন্য মন্তব্য পড়ে আমি হতবাক হয়েছি। তার টুইটটিতে তিনি তার মূল মন্তব্যটিকে “ব্যঙ্গাত্মক” হিসাবে বর্ণনা করেছেন। আমি তাকে একটি অভিধান নিতে বলব এবং “ব্যঙ্গাত্মক” শব্দটির অর্থ দেখতে বলব। আমার মনে হয় আয়নার সামনে দাঁড়ালে উনি বুঝবেন কী লিখেছেন আর মৌলবাদই বা কাকে বলে। তার এই মন্তব্য সম্পূর্ণ ইসলাম বিরোধী। কোনো মানুষের আত্মসম্মান এবং অন্যের প্রতি সম্মান না থাকলে সে এত নীচে নামতে পারে।’

তসলিমার এমন টুইটের পর অনেকেই টুইট করে তার জবাব দিলেও মঈন আলীর বাবা তা কখনো সাক্ষাৎ হলে মুখের ওপর দিতে চান। তিনি আরও লিখেছেন, ‘সত্যি বলতে আমি ভীষণ ক্ষুব্ধ। যদি কোনোদিন তার সঙ্গে সাক্ষাৎ হলে আমি তাকে মুখের ওপর এর জবাব দেব। আপাতত তাকে বলব অভিধানে সারকাজম শব্দের অর্থ খুঁজতে। সেই সঙ্গে বলব কাউকে না জেনে তাকে নিয়ে এমন মন্তব্য করা আবার পরে সেটাকে মজা বলে উড়িয়ে দেওয়া যায় না। উনি যেমনটা ভাবছেন তেমনটা নয় এটা। আমি ভাবতে পারছি না উনি আমার ছেলেকেই বেছে নিয়েছেন। ক্রিকেট বিশ্বে সকলে জানে মঈন কেমন মানুষ।’

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button