Pallibarta.com | ছিনতাইকারীর হাতে ব্যবসায়ি আহত, ছয় লক্ষাধিক টাকা ছিনতাই ছিনতাইকারীর হাতে ব্যবসায়ি আহত, ছয় লক্ষাধিক টাকা ছিনতাই

মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

ছিনতাইকারীর হাতে ব্যবসায়ি আহত, ছয় লক্ষাধিক টাকা ছিনতাই

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন রোড এলাকায় রবিবার রাতে নান্টু রায় (৪০) নামে এক ব্যবসায়িকে আহত করে ছয় লক্ষাধিক টাকা ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনা ঘটেছে। আহত ব্যবসায়িকে প্রথমে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। আহত ব্যবসায়ি নান্টু রায় পৌর এলাকার কাজীপাড়ার মহাপ্রভু রায়ের ছেলে। তিনি আবুল খায়ের কম্পানির স্টার শিপ কনডেন্স মিল্কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ডিস্ট্রিবিউটর।

ঘটনা সম্পর্কে প্রত্যক্ষদর্শী ও আবুল খায়ের কম্পানির আঞ্চলিক কর্মকর্তা লিটন পাল জানান, রাত পৌনে ১২ টার দিকে ব্যবসায়ি নান্টু রায় তার স্টেশন রোড এলাকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে কাজীপাড়ার বাসার দিকে যাচ্ছিলেন। চন্দ্রিমা হোটেলের গলিতে প্রবেশ করার পর পিছন থেকে চার-পাঁচ জন যুবক ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে। পরে তার সাথে থাকা ছয় লক্ষাধিক টাকা নিয়ে ছিনতাইকারিরা পালিয়ে যায়। ছিনতাইকারিরা প্রত্যেকেই মুখোশপড়া অবস্থায় ছিলেন।

আহত ব্যবসায়ীর কাকাতো ভাই উত্তম রায় জানান, তার ভাই নান্টু রায় আবুল খায়ের গ্রুপের স্টার শিপ কনডেন্স মিল্কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ডিস্ট্রিবিউটর হিসেবে ব্যবসা পরিচালনা করছিলেন। প্রতিদিনের আজ রাতে বাড়ি ফেরার পথে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারির দলের কবলে পড়েন। গুরুতর আহত অবস্থায় নান্টু রায়কে প্রথমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে আনা হয়। পরে তার শারিরিক অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্যে তাকে ঢাকায় নিয়ে যেতে বলেন।

এ ব্যাপারে স্টেশন রোড এলাকার বাসিন্দা মো. শামীম জানান, রাতে বাড়ি ফেরার পথে চন্দ্রিমা হোটেলের গলিতে চার থেকে পাঁচজন যুবক ব্যবসায়ি নান্টুকে কে আঘাত করে তার সাথে থাকা টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল নেয়া হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের কতর্ব্যরত চিকিৎসক আরিফুল রহমান হিমেল জানান, মাথায় গুরুত্বর আঘাত নিয়ে তিনি হাসপাতালে এসেছেন। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তবে তার মাথার আঘাত গুরুতর হওয়ার তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ এমরানু্ল ইসলাম জানান, ছিনতাইয়ের বিষয়ে আমাদের কাছে কেউ অভিযোগ দেন নি। আমাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। এ ব্যাপারে খোঁজ নেয়া হচ্ছে।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০