Pallibarta.com | গুচ্ছ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিক্রির পোস্টে সয়লাব ফেসবুক - Pallibarta.com

শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১

গুচ্ছ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিক্রির পোস্টে সয়লাব ফেসবুক

রোববার (১৭ অক্টোবর) থেকে বিজ্ঞান (এ) ইউনিটের পরীক্ষার মধ্য দিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা। আর এ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে পরীক্ষার প্রশ্ন ও সাজেশন বিক্রির পোস্টে সয়লাব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। পোস্টের ফাঁদে পড়ে কোনো কোনো শিক্ষার্থী টাকা খুইয়েছেন। তবে এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষ কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলছে, ‘প্রশ্ন ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই’।
গুচ্ছ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিক্রির পোস্টে সয়লাব ফেসবুক
শিক্ষা।
পরীক্ষাভিত্তিক বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপের পোস্টে ঘুরছে সাজেশন এ প্রশ্নপত্র দেওয়ার বিজ্ঞাপন। শিক্ষার্থীদেরকে শতভাগ নিশ্চয়তার প্রলোভন দেখিয়ে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে টাকা। এছাড়াও প্রশ্নপত্র ও সাজেশন পেতে শিক্ষার্থীদেরকে ইনবক্সেও যোগাযোগ করতে বলা হচ্ছে।

প্রশ্নপত্র পাওয়ার প্রলোভনের ফাঁদে পড়ে টাকা খোয়ানোদের একজন তাইজুল হাসান। তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ’আমি ও আমার আরেক বন্ধু মিলে সাজেশন পাওয়ার জন্য ১০ হাজার টাকা দিয়েছিলাম। ওরা আমাদের একজনকে ব্লক করে দিয়েছে শুনে আমি কথা বলতে গেছিলাম, তারপর আমাকেও ব্লক করে দিয়েছে। সাজেশনও পেলাম না, টাকাও গেল।’

প্রশ্ন ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই জানিয়ে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার টেকনিক্যাল কমিটির আহ্বায়ক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমদ নূর সংবাদমাধ্যমকে বলেন, উচ্চমাধ্যমিকের সিলেবাস অনুসারে পরীক্ষা হবে। সিলেবাসের বাইরে থেকে কোনো প্রশ্ন আসার সুযোগ নেই। আমাদের কাছে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ব্যাপারে কেউ অভিযোগ করলে আমরা অবশ্যই আইনি পদক্ষেপ নিব।

প্রশ্নপত্র ও সাজেশন দেওয়ার নাম করে যারা এসব অপকর্ম করছে তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার দাবি জানিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়াটা একটা যুদ্ধের মত। তারা সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুতি নেওয়ার পরেও সুযোগের চেষ্টা করে। কিন্তু অনেকে প্রশ্নপত্র ও সাজেশন দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শেষ পর্যন্ত তা দেয়না। এতে অনেক শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎই নষ্ট হয়ে যায়। এজন্য তাদেরকে দ্রুত চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনা হবে।

Web officer education board নামের একটি ফেসবুক পেজেও ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের বিজ্ঞাপন দিয়ে বলা হয়েছে, গুচ্ছ এডমিশন ২০২১! যারা প্রশ্নপত্র নিতে চান তারা আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। গুচ্ছ প্রশ্নপত্র দেওয়ার জন্য লিস্টে নাম নেওয়া হচ্ছে। # web officer।

এ পেজ থেকে জানানো হয়, প্রশ্নপত্র ও সাজেশন নিতে এডমিট কার্ডের ছবি, বাবা বা মায়ের জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি, ব্যক্তিগত ফোন নম্বর ও ইমেইল ঠিকানা এবং ৩৫ হাজার টাকার ৫০ ভাগ দিতে হবে। তারা ০১৯০৭৩৮১৭৮১ নগদ নম্বরে টাকা পাঠাতে বলেন।

এমন প্রশ্নপত্র ও সাজেশন দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ‘তাহসিন আব্রাহাম রোসেন’ নামে ফেইসবুকের একটি ফেইক অ্যাকাউন্ট থেকে বিজ্ঞাপন দিয়ে পোস্ট দেওয়া হয়েছে। পেজ থেকে বলা হয়েছে এ ইউনিটের প্রশ্নের জন্য ৪০ হাজার টাকা লাগবে। এজন্য উচ্চমাধ্যমিকের এডমিট কার্ডের ছবি, অভিভাবকের ফোন নম্বর এবং ৫০ ভাগ টাকা জমা দিয়ে ‘সিক্রেট কিউ’ গ্রুপে যুক্ত হতে হবে।

এদিকে বড় পরিসরের সমন্বিত এই ভর্তি পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীরা যেন সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে অংশ নিতে পারে সেই লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়া, আসন বিন্যাস প্রকাশ করা এবং পরীক্ষার্থীদের দুর্ভোগ লাঘবে বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৭ অক্টোবর বিজ্ঞান (এ) ইউনিটে, ২৪ অক্টোবর মানবিক (বি) ইউনিটে এবং ১ নভেম্বর বাণিজ্য (সি) ইউনিটে দুপুর ১২টা-১টা পর্যন্ত গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করার জন্য পরীক্ষা শুরুর এক ঘণ্টা আগেই সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে পৌঁছানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলসহ অন্যান্য সকল তথ্য https://gstadmission.ac.bd ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০