Pallibarta.com | ক্ষুধার জ্বালায় কৃষকের আত্মহত্যা - Pallibarta.com

রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১

ক্ষুধার জ্বালায় কৃষকের আত্মহত্যা

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ক্ষুধার জ্বালায় ইদ্রিস আলী (৭০) নামে এর বৃদ্ধের আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার প্রাগপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড মহিষকুন্ডি গ্রামের হাতিশালা এলাকার নিজ বাড়ি থেকে ওই বৃদ্ধের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি একই এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় মহিষকুন্ডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক জানান, ইদ্রিস আলী নামে ওই বৃদ্ধ খাবার কষ্টে থাকতেন সবসময়ই।

ছেলের বউ তাকে দেখতে পারতেন না। একবেলা খাবার খেতে দিলেও করতেন বকাঝকা করতেন। এমন কষ্ট থেকে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন।
তিনি বলেন, বয়স্ক ভাতা, ফেয়ার প্রাইস কিংবা সরকারি সব ধরনের সুবিধা থেকেই বঞ্চিত ছিল ইদ্রিস। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের কাছে বহুদিন ধরে ধরনা দিয়েও কোনো কাজ হয়নি বলে অভিযোগ আছে।

ইদ্রিস আলীর ছেলে দিনমজুর সিদ্দিক আলী (৩৫) বলেন, ’১৩ বছর আগে আমার মায়ের মৃত্যুর পর থেকে আমার আব্বা মানসিকভাবে একটু দুর্বল হয়ে পড়েন। তখন থেকেই আগে দিনমজুরের কাজ করলেও বয়স হয়ে যাওয়া এবং পেটের ব্যথায় কাজকাম করতে পারতেন না। ’

তিনি বলেন, ‘দিনমজুরের কাজ করে আমিই সংসার চালাই। কাজের সূত্রে ঢাকাতে থাকতে হয়।

আমার স্ত্রী সাফিনা খাতুন ও বাচ্চাদের সঙ্গেই বাবা বাড়িতে থাকতেন। অভাবের সংসারে খাওয়া-দাওয়া নিয়ে কিছু সমস্যা ছিল। ’
ইদ্রিস আলী পুত্রবধূ সাফিনা খাতুন বলেন, ‘গত সোমবার সকালে সংসারের একটা কাজ নিয়ে রাগারাগি হয়েছিল। তারপর শ্বশুর আর খেতে আসেননি। ’

স্থানীয় ৫নং ওয়ার্ড মহিষকুন্ডি গ্রামের ইউপি সদস্য আলা উদ্দিন বলেন, ‘আমাদের কিছু করার ছিল না। কারণ ইদ্রিস আলীর প্রকৃত বয়স সত্তোরোর্ধ্ব হলেও তার জাতীয় পরিচয়পত্রে ৫৯ বছর লেখা ছিল। এ জন্য তাকে আমরা বয়স্ক ভাতার কার্ড দিতে পারিনি। ’

তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন সময় তিনি (ইদ্রিস আলী) বয়স্ক ভাতা কার্ডের জন্য অনুরোধ করলেও দিতে পারিনি। তার নামে সরকারি সুবিধাভোগী কোনো কার্ডই ছিল না। ’

ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফ্জ্জুামানও ইদ্রিস আলীর পরিবারে অভাব-অনটনের কথা স্বীকার করেছেন।

তিনি বলেন, ‘এখন শুনতে পাচ্ছি লোকটার সংসারে খুব অভাব ছিল। খাওয়া-দাওয়ার কষ্ট ছিল। কিন্তু সে কখনো তার এত কষ্ট আছে কাউকে বলেনি। ’

চেয়ারম্যান বলেন, ‘বিষয়টি জানাজানির পর গতরাতে প্রশাসনের কর্মকর্তারা এসে সব শুনে লিখে নিয়ে গেছেন। আপনারা ওনাদের সঙ্গে কথা বলেও জানতে পারবেন। ’

এ বিষয়ে কথা বলতে দৌলতপুর উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আতাউর রহমানের মোবাইল ফোনে কল করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

মোবাইলে যোগাযোগ করলে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আব্দুল জব্বার বলেন, ‘দেখুন, এটা খুব দুঃখজনক একটা উদাহরণ হয়ে যাবে। সরকার যেখানে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর খাদ্য নিরাপত্তায় ব্যাপক কর্মযজ্ঞ চালিয়ে যাচ্ছে, সেখানে এই দেশে কোনো মানুষ না খেয়ে মারা যাবে এটা হয় না। ’

তিনি বলেন, ‘আমি রাতে গিয়েছি ঘটনাস্থলে। সেখানে পরিবার ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে যেটা জেনেছি- না খেয়ে মারা গেছে এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন। ’

‘ইদ্রিস আলীর পেটের পীড়াজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন বলে পরিবার জানিয়েছে। সেই সঙ্গে পারিবারিক কিছু কলহ থাকলেও থাকতে পারে’ দাবি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার।

দৌলতপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম জানান, ইদ্রিস আলী নামে এক বৃদ্ধের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়।

তিনি আরও বলেন, ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১