Pallibarta.com | কফিপ্রেমীদের জন্য দুঃসংবাদ ঃ কফি ডেকে আনতে পারে নানা বিপদ

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১

কফিপ্রেমীদের জন্য দুঃসংবাদ ঃ হতে পারে নানা বিপদ

কফিপ্রেমীদের জন্য দুঃসংবাদ ঃ হতে পারে নানা বিপদ

শুধু ক্লান্তি কাটানোই নয়, কফির আরও হাজারো গুণ রয়েছে। কিন্তু তার মানে কি যত ইচ্ছে কফি পান করা যেতে পারে? মোটেই তা নয়। তেমনই বলছে ‘আমেরিকান জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশন’-এ প্রকাশিত এক গবেষণায়।

১ আগস্ট রোববার ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, মাত্রাতিরিক্ত কফি ডেকে আনতে পারে নানা বিপদ। তেমনই বলা হয়েছে ‘আমেরিকান জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশন’ এর গবেষণাপত্রে।

মাত্রাতিরিক্ত কফি যে সব বিপদ ডেকে আনতে পারে:

প্রচুর পরিমাণে কফি এক সময় রক্তে ক্যাফিন বোঝাই করে দেয়। ফলে তার প্রতি আসক্তি তৈরি হতে থাকে। অন্যান্য নেশায় যেমন হয়, তেমনই হতে থাকে কফি নিয়েও। নির্দিষ্ট সময় পর পর কফি না পেলে মেজাজ খারাপ হতে থাকে।

রক্তে মাত্রাতিরিক্ত ক্যাফিন প্রভাব ফেলে হৃদযন্ত্রেও। ফলে এ অঙ্গের কাজকর্মও ব্যাহত হয়। এমনকি রক্তচাপও বদলে যেতে পারে।

যারা প্রচুর পরিমাণে কফি পান করেন, তাদের অনেকের ঘুম কমে যায়। ফলে মস্তিষ্কের কাজও ব্যাহত হয়।

আমেরিকান জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশনে প্রকাশিত গবেষণাপত্র বলছে, দিনের মাথায় চার কাপ। বড় জোর এ পরিমাণে কফি পান করা উচিত। আর কোনো কোনো দিন ব্যতিক্রম হলে পাঁচ কাপ। কোনোভাবেই তার বেশি নয়। চার কাপ কফি খেলে হৃদযন্ত্র নিয়ে আশঙ্কা করতে হবে না। ঘুমেরও ব্যাঘাত ঘটবে না।
তবে সকালে রোজ গ্রিন কফি শরীরের কোনো ক্ষতি তো করেই না; বরং নিয়মিত এ কফি খেলে নিয়ন্ত্রণে থাকবে কিছু রোগও। না-সেঁকা কফির বীজ থেকে তৈরি হওয়া এ কফিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট। এ কফি নিয়মিত খেলে শরীরের কী কী উপকার হয়, জেনে নিন।

সকালবেলা উঠে দুধ দেওয়া কফি বা চায়ের বদলে গ্রিন কফি পানে ওজন কমবে দ্রুত। বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, গ্রিন কফির বীজ দ্রুত ওজন কমাতে পারে।

গ্রিন কফিতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট থাকায়, তা শরীরকে নানা রোগ থেকে বাঁচায়। এমনকি অকালবার্ধক্য হওয়ার আশঙ্কাও কমে যায়। ত্বক ও চুলের নানা সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে রোজ গ্রিন কফি পান করুন।

এ ছাড়া ডায়াবিটিসের সমস্যায় গ্রিন কফি খুবই উপকারি। কারণ এটি পানে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত এ কফি খেলে টাইপ টু ডায়াবিটিস হওয়ার আশঙ্কা কমে। উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা থাকলে চোখ বুজে গ্রিন কফি খান। এতে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকবে। এছাড়া হৃদ্‌রোগ ও কিডনির সমস্যা প্রতিহত করতে পারে এই কফি। গ্রিন কফির বীজে রয়েছে ক্রোনোলজিক্যাল অ্যাসিড, যা শরীরের বিপাকীয় হার ঠিক রাখে। এর ফলে শারীরিক শক্তি বাড়ে।

আরো পড়ুন ...

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১